1. mail@tathagataonline.net : admi2017 : নিজস্ব প্রতিবেদক
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:১১ পূর্বাহ্ন

লটুকিক জাতক

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট শনিবার, ৩ অক্টোবর, ২০২০

পুরাকালে বোধিসত্ত্ব হস্তীকুলে জন্মগ্রহণ করে অাশি হাজার হাতির অধিপতি হয়েছিলেন। সে সময় এক লটুকিক পাখি হাতিদের বিচরণের স্থানে ডিম পেড়েছিল। সেই ডিম ফুটে একসময় ছানা বের হলো।

ছানা গুলোর তখনও পাখা গজায়নি, সেজন্য তারা উরতে পারত না। এমন সময় বোধিসত্ত্ব দলবল সহ সেই পথে এসে উপস্থিত হলেন। তখন মা লটুকিক পাখি তার ছানাদের জীবন বাঁচাবার চিন্তায় অস্থির হয়ে পড়ল।সে ভাবল, হাতির পায়ের তলে পড়ে এই বুঝি তার ছানাদের প্রাণ যায়।
কাজেই সে তার ছানাদের প্রাণরক্ষার জন্য বোধিসত্ত্বের কাছে মিনতি জানাল। বলল হে হস্তীরাজ অাপনার বয়স ষাট বছর, অাপনি যশস্বী, পর্বতের ওপরের সমতল ভূমিতে বিচরণ করেন। অামার দুটি পাখা জোর করে অাপনাকে বন্দনা করছি। অামার দুর্বল ছানাগুলোকে মারবেন না। বোধিসত্ত্ব বললেন,’হে লুটকিক পাখির মা!তুমি ভয় পেয়োনা। অামি তোমার ছানাদের রক্ষা করব’- এই বলে তিনি ছানাগুলোকে পায়ের ফাঁকে অাগলে রাখলেন। একে একে অাশি হাজার হাতি চলে গেলে তিনি সরে দাঁড়ালেন। তারপর সেখান থেকে যাওয়ার সময় লটুকিক পাখির মাকে বললেন, অামাদের পিছনে একটি দল ছাড়া হাতি অাছে।সে একা। সে অামাদের কথা শোনে না, অামার অাদেশ ও মানে না। কাজেই তুমি তার কাছে তোমার বাচ্চাদের বাঁচাবার জন্য প্রার্থনা করো। লটুকিক পাখি বোধিসত্ত্বকে ধন্যবাদ দিয়ে বিদায় জানাল।

তারপর সেই দলছুট হাতিটি এলো। মা লুটকিক পাখিটি তার ছানাদের প্রাণ রক্ষার জন্য অাগের মত করে প্রার্থনা জানাল। তখন সেই একাচারী হাতি বলল, লটুকিক পাখি, অামি তোমার বাচ্চাদের পায়ে পিষে মারব। তুমি দু্র্বল, তুমি অামায় কি করতে পারবে? তোমার মতো শত শত লটুকিক পাখিকে অামার এই বাঁ পা দিয়ে শেষ করে দিতে পারি- এই বলে সে বাচ্চাগুলোকে পায়ে দলে পিষে চিৎকার করতে করতে চলে গেল।
মা লুটকিক গাছের শাখায় বসে বলল, হে হস্তীরাজ তুমি অাজ চিৎকার করতে করতে যাচ্ছ যাও। কয়দিন পরে অামি তোমার কি করতে পারি তা বুঝবে। শরীরের শক্তি থেকে জ্ঞানের বল যে শ্রেষ্ট তা তুমি জানো না। অামি তোমাকে উচিত শিক্ষা দেব।
তারপর লটুকিক পাখি এক কাকের সঙ্গে বন্ধুত্ব করল। কাক তার বন্ধুত্ব্বে খুশি হয়ে বলল, বন্ধু! অামি তোমার কি করতে পারি? লটুকিক পাখি বলল, বন্ধু তোমার সরু ঠোঁট দিয়ে একদিন ঐ একাচারী হাতির চোখ তুলে নিতে পারবে? কাক লটুকিক পাখির দুঃখের কাহিনী শুনে বলল অাচ্ছা।

তারপর লটুকিক এক নীল মাছির সঙ্গে বন্ধুত্ব করল। নীল মাছিও কাকের মতো লটুকিক পাখির দুঃখের কথা শুনে খুব কষ্ট পেল। লটুকিক পাখি বলল, ভাই, কাক যখন হাতির চোখ তুলে নেবে, তুমি তখন সেখানে ডিম পারবে। এই অামার অনুরোধ। এতে নীল মাছি রাজি হলো। তারপর লটুকিক এক ব্যাঙের কাছে গেল। তার সঙ্গে বন্ধুত্ব করল। ব্যাঙ ও লটুকিক পাখির সব কথা শুনল। তখন লটুকিক বলল, ভাই ব্যাঙ! একাচারী হাতি চোখের যন্ত্রণায় ছটফট করতে করতে পানি খাওয়ার জন্য এদিক সেদিক ছোটাছুটি করবে। তখন তুমি পাহাড়ের ওপর গিয়ে শব্দ করবে। হাতিটি তখন পাহড়ে উটবে। হাতিটি পাহাড়ে উঠলে তুমি নিচে নেমে শব্দ করবে। তখন হাতিটি পাহাড় থেকে নিচে নামতে চেষ্টা করবে। অার নিচে নামার সময় পা ফসকে গিরিখাতে পড়ে মরবে। এটুকু অামি তোমার কাছে চাই। ব্যাঙ তাতে রাজি হলো।

তারপর কাক হতির চোখ দুটি তুলে নিল, নীল মাছি তাতে ডিম পাড়ল। হাতি চোখের যন্ত্রণায় অস্থির হয়ে পানির খোঁজে ছোটাছুটি শুরু করল। ব্যাঙ পাহড়ের ওপর গিয়ে ডাকতে শুরু করল। অনেক কষ্টে হাতি পাহাড়ের ওপর উঠল। তখন ব্যাঙ পাহাড়ের নিচে গিরিখাতে গিয়ে ডাকতে শুরু করল। হাতিও সেখানে ছুটল কিন্তুু ওপর থেকে নিচে নামার সময় অন্ধ একাচারী হাতি গিরিখাতে পড়ে প্রাণ হারাল।
এভাবে লটুকিক পাখি বুদ্ধি দ্বারা বিশাল হাতিকে পরাজিত করে।
উপদেশ : দেহবলের চেয়ে জ্ঞানবল বড়।

Facebook Comments

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2018 tathagataonline.net
Theme Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!